শনিবার সকাল ১১:৪৫ ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১০ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি শীতকাল
বাংলাদেশ

স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির অভিযোগে সেই মিঠুসহ ৫ জনকে দুদকে তলব

আপডেটঃ জুলাই ৪, ২০২০

দেশের আলো ডেস্ক :বাংলাদেশে সরকারি প্রতিষ্ঠানে মাস্ক, পিপিই এবং স্বাস্থ্য সরঞ্জাম সরবরাহে অনিয়ম ও দুর্নীতির অনুসন্ধানের অংশহিসেবে জিএমআই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ পাঁচজনকে তলব করেছে দুদক। বুধবার দুদকের পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর স্বাক্ষরে এই নোটিশ পাঠানো হয়। অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য নেয়ার জন্য যাদের প্রতি নোটিশ জারি করা হয়েছে তারা হলেন- মেসার্স জেএমআই হসপিটাল রিক্যুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুর রাজ্জাক, ঢাকা সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালের চেয়ারম্যান এবং
লেক্সিকোন মার্চেন্ডাইজ ও টেকনোক্র্যাট লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. মোতাজ্জেরুল ইসলাম মিঠু, তমা কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড কোং লিমিটেডের সমন্বয়কারী (মেডিকেল টিম) মো. মতিউর রহমান, এলান কর্পোরেশন লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থা

পনা পরিচালক আমিনুল ইসলাম আমিন এবং মেডিটেক ইমেজিং লিমিটেডের পরিচালক মো. হুমায়ুন কবির। জরুরি নোটিশে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে।

নোটিশে আরও বলা হয়, একে অন্যের যোগসাজশে তারা কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে অবৈধ সম্পদ গড়ে তোলেন। অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে কোভিড-১৯-এর চিকিৎসার জন্য নিম্নমানের মাস্ক, পিপিই ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি ক্রয় ও বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে তাদের বক্তব্য নেয়া একান্ত প্রয়োজন। তাই মো. আব্দুর রাজ্জাক, মো. মতিউর রহমান ও আমিনুল ইসলাম আমিনকে ৮ জুলাই দুদকে হাজির হয়ে রেকর্ডপত্রসহ বক্তব্য প্রদানের অনুরোধ করা হয়। এছাড়া হুমায়ুন কবির ও মোতাজ্জেরুল ইসলাম মিঠুকে ৯ জুলাই দুদকে হাজির হয়ে রেকর্ডপত্রসহ বক্তব্য প্রদানের অনুরোধ করা হয়।
নির্ধারিত সময়ে হাজির হয়ে বক্তব্য প্রদানে ব্যর্থ হলে বর্ণিত অভিযোগ সংক্রান্ত বিষয়ে তাদের কোনো বক্তব্য নেই মর্মে গণ্য করা হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!
Close
Close